• মঙ্গলবার, ১৪ Jul ২০২০, ০২:৪২ পূর্বাহ্ন

চৌগাছায় জবি শিক্ষার্থীর পরিবারের উপর হামলা, থানায় ডায়েরী

চৌগাছায় জবি শিক্ষার্থীর পরিবারের উপর হামলা, থানায় ডায়েরী

জবি প্রতিনিধি : যশোরের চৌগাছায় জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) এক শিক্ষার্থীর পরিবারের উপর দুই বার হামলার ঘটনা ঘটেছে। এতে তার বাবা গুরুতর আহত হওয়ায় ওই শিক্ষার্থী বাদী হয়ে স্থানীয় চৌগাছা থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করেছে বলে জানা গেছে।

জানা যায়, গতকাল বুধবার (২৪ জুন) চৌগাছা থানার স্বরুপদাহ ইউনিয়নের সাঞ্চাডাঙ্গা গ্রামে আব্দুর রশিদের (শিক্ষার্থীর বাবা) নতুন রোপন করা ধান ক্ষেত একই গ্রামের আমিনুর রহমানের (৪০) গরু দ্বারা বিনষ্ট হয়। এ নিয়ে আমিনুরের ছেলে রিয়াদের (১৭) সাথে তর্ক বিতর্ক হয়। পরে ক্ষুদ্ধ হয়ে রশিদকে মারতে থাকে রিয়াদ। পরে রশিদ আহাজারি করলে কয়েকজন এগিয়ে এসে তাকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে।

মারার সময় প্রত্যক্ষদর্শী আবু কালাম ও সবুজ বলেন, ছোট ঘটনা নিয়ে উভয়ের মধ্যে তর্ক হয়। এক পর্যায়ে রিয়াদ রশিদকে মারতে থাকে। পরে রশিদের আহাজারি শুনে আমরা ঠেকাতে যায়।

এদিকে রিয়াদের বাবা আমিনুরকে গ্রামের সালিশিতে আসতে বললে তিনি বলেন, আমার ছেলে কারো গায়ে হাত দেয় নি। আমি গ্রামের কোন মানুষের ধার ধারি না। কে কি করতে পারে দেখে নিব। এসময় লাঠিসোটা নিয়ে আমিনুরসহ তার ভাই শাহিনুর, ভাই জামীর, ছেলে রিয়াদ ও ভাতিজা সোহাগকে অশ্রাব্য ভাষায় গালি দিতে দেখা যায়।

রাতে গ্রামের সালিশিতে অভিযুক্ত হামলাকারীরা না আসলে গ্রামের লোকজন তাদের নিন্দা করে এবং ঘটনা এখানেই শেষ হবে বলে সবাই মনে করে।

কিন্তু এর পরেরদিন (২৫ জুন) সকাল ৭ টায় রশিদকে পুনরায় হামলা করে আমিনুর, শাহিনুর, জামীর (ভোলা), রিয়াদ ও সোহাগ। লাঠি দিয়ে পিটাতে পিটাতে শাহিনুর বলে আমার ভাতিজার গায়ে হাত দিয়েছিস, তোর কে আছে দেখে নিব। এসময় উপস্থিত একই গ্রামের পেন্টু ও আলম মারার সময় তাকে উদ্ধার করে।

প্রত্যক্ষদর্শী পেন্টু বলেন, রশিদ গ্রামের নিরীহ মানুষ। সবাই জানে সে কারো সাথে ঝামেলা করে না। আমি দেখলাম তারা রশিদকে লাঠি দিয়ে মারছে। আমি ঠেকাতে গিয়েও লাঠির বাড়ি খেয়েছি।

বাবাকে শারীরিক নির্যাতনের ঘটনায় জবির গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের ওই শিক্ষার্থী বলেন, তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে গতকাল বিকালে আমার বাবাকে মারা হয়। ঘটনা শুনে সহজে সমাধানে আমি গ্রামের মুরব্বীদের নিয়ে সালিশি ডাকি। কিন্তু তারা না এসে বলে আমরা গ্রামের কাউকে মানি না। অথচ আজ সকালে আমিনুর, শাহিনুরসহ তাদের ভাই ও ছেলেরা একা পেয়ে আমার বাবার উপর পুনরায় হামলা করে। আমি এর বিচার চাই।

এ দিকে হামলার বিষয়ে জবি প্রক্টর ড. মোস্তফা কামাল বলেন, এক শিক্ষার্থীর পরিবারের উপর হামলার কথা শুনেছি। আমরা ওই এলাকার স্থানীয় প্রশাসনের সাথে যোগাযোগ করে ব্যবস্থা নিবো।

অপরদিকে চৌগাছা থানার ওসি রিফাত রাজিব বলেন, এক পরিবারের উপর হামলার ঘটনায় থানায় সাধারণ ডায়েরী হয়েছে। আমরা তদন্ত করে ব্যবস্থা নিব।

You can share this post!





Leave Comments